৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪
জুন ১১২০১৭
 
 ১১/০৬/২০১৭  Posted by

তৈমুর খান-এর দীর্ঘ কবিতা : আত্মস্রোত

 

আমি নদী হয়ে বয়ে চলেছি
আমার বিদ্রোহী আত্মা
জেগে ওঠেনি কোনও ব্যঞ্জনার কাছে
পঞ্চসখীরা আলতা ধুয়ে গেছে
সাঁতার কেটেছে হৃদয়ে আমার
বালিতে প্রণয় চিহ্ন এঁকে
একে একে চলে গেছে অন্য পুরুষের দ্বারে

আত্মা জাগেনি। ধর্মোৎসবের মলিন সকালে
কত হুলোহুলি
মাংস ও নারী বিক্রি হয়েছে দেদার
দীর্ঘ সঙ্গমের ওষুধ কিনে
কেউ কেউ ফিরে গেছে বাড়ি

আমার বাড়ি নেই। ঈশ্বর নেই। ধর্মোৎসব
নেই। শুধু আমলকী গাছের ছায়ায়
বসে বসে ডেকেছে দিনান্তের পাখি।
বৃদ্ধ সূর্য দার্শনিকের মতো রাত্রির দিকে
চলে গেছে।

আমি শুয়ে আছি। শুয়ে শুয়ে মৈথুনের
শব্দ পাচ্ছি। শীৎকার ধ্বনিতে উন্মুখ হচ্ছে
পাখি। রাতের চুড়ি বাজছে ঘন ঘন। শরীরী
উল্লাসে কাঁপছে প্রমোদ কানন। চুম্বনের লহরী আসছে
গাঢ় লাল দুই ঠোঁটের মতন ।

কোথাও কথা নেই। শুধু কথার ঘ্রাণ। আলোর
ফিসফাস। বস্তুময় উপসর্গ। কোথাও কোথাও
স্বর্গের আভাস পাচ্ছে কেউ। ঈশ্বরের ছায়া
নাচতে দেখে কেউ কেউ পরকালের রাস্তা
খোঁজে।
এই তার চমৎকার। এই তার সম্ভাব্য যাপন।
কালে কালে জন্মেন ঈশ্বর। ঈশ্বর তাদের
পিতা। অলীক দয়ালু। ঈশ্বর তাদের সর্বনাম।

আমার প্রবাহে কারা তরণি ভাসায়?
রাজ কাপালিক রক্ত ধুতে আসে
কোলাহল থেকে ছিটকে আসে রক্তস্রোত
লাশ ভাসে
লাশের মহিমা বুঝি নাকো

অন্ধকার যুগে সভ্যতার বাল্যকাল হাসে
অথবা চির মূর্খ কাল সমূহ উত্তেজনা ক্রোধ
ধ্বংস বিহ্বলতা আততায়ী পোষে
সজীবতি ঘাতকের ছলে
দলে দলে বিনাশের অস্ত্র তুলে নেয়

নদী — সব সম্পর্কের ভেতর আমিই
সূত্রধর
আমিই বিপুল দিন বিপ্লবের নতুন অধ্যায়
অথবা প্লাবনময় মৃত্যু অভিঘাত
তারপর প্রাচুর্যের পলি। কৃষি ও নগর পত্তন।

ক্লান্তিহীন নীরবে নীরবে স্নানের দৃশ্য দেখি
দুর্লভ অমোঘ স্নান, ত্রিভঙ্গ দোদুল জঙ্গম
বাসুকির ফণাময় দুর্লভ নাচন

ঘোরের ভেতর দৃশ্য
সুরের ভেতর সম্মোহন
আলুথালু বৃন্দাবন, নগর উত্থান
সব দেবতার বাঁশি এই তীরে এসে বাজে
অথবা রঙধনু চিতা। বাউলের নিসর্গ অভিমান।

কার্যত নীরবতার ভেতর শূন্যতা এসে দরজা খোলে
চোখ মেলে চেয়ে থাকি দূরে—
এপার ওপার জুড়ে সংশয়ের রেখা
সেতু বাঁধে। যদিও ভঙ্গুর সব সেতু
পার্থিবের কাছাকাছি থেকে কেন অবিশ্বাস ডাকা?
অলীক নিষ্ফল সাধনায় জুড়ে যায় Believe Believe

 

 


কবি পরিচিতি

তৈমুর খান

তৈমুর খান

তৈমুর খান। জন্ম ২৮ জানুয়ারি ১৯৬৭, বীরভূম জেলার রামপুরহাট সংলগ্ন পানিসাইল গ্রামে। শিক্ষা বাংলা ভাষা সাহিত্য নিয়ে মাস্টার ডিগ্রি ও প্রেমেন্দ্র মিত্রের কবিতা নিয়ে পি এইচ ডি। পেশা : উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহশিক্ষক।

প্রকাশিত গ্রন্থঃ আটটি >- কোথায় পা রাখি, বৃষ্টিতরু, খা শূন্য আমাকে খা, আয়নার ভেতর তু যন্ত্রণা, বিষাদের লেখা কবিতা, জ্বরের তাঁবুর নীচে বসন্তের ডাকঘর, প্রত্নচরিত ইত্যাদি।

পুরস্কারঃ কবিরুল ইসলাম পুরস্কার, দৌড় সাহিত্য সম্মান এবং সুখচাঁদ সরকার স্মৃতি পুরস্কার ইত্যাদি।

ঠিকানা : রামরামপুর, শান্তিপাড়া, রামপুরহাট, বীরভূম, পিন কোড ৭৩১২২৪, পশ্চিমবঙ্গ। ফোন নম্বর ৯৩৩২৯৯১২৫০

Loadingপ্রিয় তালিকায় রাখুন!
E