৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪
ডিসে ০৩২০১৬
 
 ০৩/১২/২০১৬  Posted by
কবি বীরেন মুখার্জী

কবি বীরেন মুখার্জী

বীরেন মুখার্জী’র ৪টি কবিতা ইংরেজি ভাষান্তরে


নদীর কাছে এসে

নদীর দিকে তাকিয়ে সহসা মনে হলো-
বাতাসে আঁচল উড়িয়ে তোমারও নদী দেখার শখ ছিল;
নদী প্রিয় মেয়ে তুমি ঘোলা জলের কিনারায় দাঁড়িয়ে
জলের কাব্য শোনো; আর অস্পষ্ট ব্যাকরণপ্রভায়
নিজেকে লুকিয়ে রাখো জলের অতলে!

তোমার ফুলস্কেপ চোখের পাতায় ঠাঁ ঠাঁ রোদ্দুর
নদীর সঙ্গে মিতালী করেছে সূর্য বিকেল
সাইবার ক্যাফের ভূগোলে তবুও শরতের কাশফুল
মৃদু সম্ভাষণ মাখে শহরতলায়!

যুগাবধি নদী ও মানুষের সমান্তরাল চলাচল
নিরপেক্ষ সন্ধিতে এ দু’য়ের আস্তা অবিচল।

Proximity of River

Looking at the river I suddenly remembered
You also had the curiosity to see the river
flying your aanchal of your sari
The river is the dear girl, you would stand beside the water bank
Listen to the melody of water; and with vague grammar
You hide yourself under the fathomless water!

Sunshine dazzle on the lips of your foolscap eyes
The afternoon-sun made friend with the river
Flowers of Autumn is with the geography of cyber cafe
The cities speaks timidly

All through the ages the human beings and river move side by side
They intermingle with each other in an impartial accord.

Translated by Siddique Mahmudur Rahman


মৃত্যুর কাছাকাছি একদিন

চোখের পাতায় আছড়ে পড়ছে নীলজল- নীল বদ্বুদ, ঝিম ঝিম ভেঙে যাচ্ছে মস্তিষ্কের নিউরন, কুয়াশা পরিরা হেঁটে যাচ্ছে ক্রমশ সেলুলয়েডে; উঁচু-নিচু পাহাড়ি পথ, কাঁটাতার ডিঙিয়ে অন্ধ জ্যোৎস্নায়। মাইগ্রেন তীব্রতা, টিক টিক টিক টিক… পাকস্থলি উগরে ধেয়ে আসছে জমাট ঢেউ, অ্যানেসথেসিয়ার ঝাঁঝালো গন্ধে মিশে যাচ্ছে বিন্দুবাদী দেহ…

লাবণ্যময় সাদা নার্সের স্পর্শ, দ্যুতিময় কোলাহল; আমার অস্তিত্বে ভুলের জয়োল্লাস, সময় ভেসে যাচ্ছে অভিজাত ক্লিনিকের শ্বেত-শুভ্র কৌতূহলে!
মৃত্যুর কাছাকাছি একদিন

চোখের পাতায় আছড়ে পড়ছে নীলজল- নীল বদ্বুদ, ঝিম ঝিম ভেঙে যাচ্ছে মস্তিষ্কের নিউরন, কুয়াশা পরিরা হেঁটে যাচ্ছে ক্রমশ সেলুলয়েডে; উঁচু-নিচু পাহাড়ি পথ, কাঁটাতার ডিঙিয়ে অন্ধ জ্যোৎস্নায়। মাইগ্রেন তীব্রতা, টিক টিক টিক টিক… পাকস্থলি উগরে ধেয়ে আসছে জমাট ঢেউ, অ্যানেসথেসিয়ার ঝাঁঝালো গন্ধে মিশে যাচ্ছে বিন্দুবাদী দেহ…

লাবণ্যময় সাদা নার্সের স্পর্শ, দ্যুতিময় কোলাহল; আমার অস্তিত্বে ভুলের জয়োল্লাস, সময় ভেসে যাচ্ছে অভিজাত ক্লিনিকের শ্বেত-শুভ্র কৌতূহলে!

One day Proximity to Death

Blue water crushed down on the lids of eyes- blue bubbles, neurons of brains are breaking down crash, crash, mist-fairies are walking past to the celluloid; undulating hilly paths, to the darkened moonbeam crossing the barbed wire, severe migraine, tick tick tick tick… condensed waves are vomited up from stomach, dotted body is dissolved with the sizzling smell of anesthesia.

Touches of beautiful white nurses, brilliant chorus my living self covers with joyousness of blunder, time passes on with the snow-white curiosity of the aristocratic clinic.

Translated by Siddique Mahmudur Rahman


স্বপ্নে লেখা কবিতা

হয়তো বা বৃক্ষ নয়, নদীই দাঁড়িয়ে থাকে
জীবনের জয়গান নিয়ে;
আমরা চলেছি ভেসে-জীবন সন্ধানে।

হয়তো নদীও নয়, সময় দাঁড়িয়ে থাকে
জীবনের অন্ধকার গর্ভে;
আমরা চলেছি ভেসে-সময়ের স্রোতে।

হয়তো সময় নয়, হয়তো আমরা নই
বিনির্মাণে, শূন্যতার রোলকল-চারিপাশে!

The Poem I have Written In My Dream

Maybe it is not the arbors, it’s the river that stands still
with the victorious song of life;
We have been floating away in search of thee.

Maybe it is not the river, it’s the time that stands still
in the dark womb of life;
We have been floating away in the tide of time.

Maybe it is not the time and not us either
in the making of it
the roll call of emptiness surrounds everything.

Translated by Razia Sultana


নৈঃশব্দ্যের ঘ্রাণ

তবে কী পরিহাস ছিল সব!
অন্তউড়ি মেঘের সন্ধানে ভেসে যাওয়া জলকণা
উজ্জ্বল চোখ, সবুজ ক্লোরফিল, শব্দের অহম
অব্যক্ত কবিতা কিংবা গমনপথের মাত্রা?

বোধন বাতাসে দেখি পুড়ে যাচ্ছে- চোখের দীঘি
ছায়ার সমান্তরাল হেঁটে পথ পৌঁছে যাচ্ছে
লাউফুল ফোটা শীতের তরুণ উঠোনে  
বুকে চেপে ধূপের সুগন্ধ সলাজ উষসী রাত
আশার সংসারে হয়ে ওঠে একমুঠো সুখের আরতি!

নির্বিঘ্ন পথ- পথের সারথি তুমি
অন্তর্জলি চাঁদের আকাশে উড়িয়ে দাও শৈশব ঘুড়ি
পরিহাস ভেঙে ভেঙে প্লাবিত হোক তবে
নৈঃশব্দ্যের ঘ্রাণ  থেকে তুলে নেয়া বোধিসত্ত্ব!

২)
ফিরে আসি নৈঃশব্দ্যের কোলে বারবার, অবলা পাতায়
ভ্রমণ সংযত রেখে- হেমন্তপথ শেষে একাকী;
ফিরে এসেছিল তারা, দৈনন্দিন ভ্রমণে যারা খুঁজেছিল  
পূর্ণতার পানপাত্র একদিন;
এখন বায়বীয় স্পর্শ-সুখে ক্রন্দনরত রাত
হামা মাখে চোখের সকালে।

বিবর্ণতা পরিবর্তনের সংস্কার- সে এক নতুন আয়োজন
বোধের বিলম্বিত পাঠে বুঝে নেওয়া সমূহ ভুলসত্য।

৩)
মাটিমুখী জ্যোৎস্নার ঘ্রাণ শুঁকে
বেহিসেবি কাম-তটিনী যদি হও রাজশ্রী পথে
তোমার নূপুরের শীর্ষে বাজে
শৈলগিরি চূড়া!

পুন্যস্নানে নিভে গেলে জলতৃষ্ণা রোজ
মধ্যযামে লোভের করাতকল
সশব্দে জাগিয়ে রাখে কামনার অধরা হি-হি!

শব্দব্রহ্ম রচি আমি- যুগপুরুষ এক, কবিতার দেহে
সূর্যরঙে সরীসৃপ বেহেড মাতাল মুখে, তবু
উর্দ্ধশ্বাসে, ঈর্ষা পান শেষে- আত্মতৃপ্তি খোঁজে
বিশ্বাস প্রকৌশল ভাঙে অন্যপথ- প্রশস্ত পাতার বুকে!

৪)
এবার বুনে দেবো জলের বীজ মেঘের উঠোনে।
ধান-শালিখ নিজস্ব ভাষায় খুঁজে নেবে মঙ্গল প্রার্থনা
কণ্ঠে রোদের প্রহরী বসিয়ে
যারা একদিন বাগান শূন্য করে পেড়ে এনেছিল
মাটিবর্তী বেদনা-ফল
তাদের ঝিলিক ডানায় আজ ছুঁয়ে যায়
এলিয়েন ঘুম!

একদিন মাছের শয্যা থেকে উঠে আসা লাল-চোখ
স্বপ্ন মোছা রঙিন খামে ঝুলিয়ে রাখে
বর্ষায় ভেজা ঠোঁট
মানুষের কুয়াশা ভেজা আশা উঠে আসে নোবেল কমিটিতে!

৫)
অন্ধকার আহ্বান মাখি, শুনি ঝিঁ ঝিঁ পোকাদের গান
কুয়াশাপেখমে দূরে সরে যায় বিনীত চাঁদ একদিন
বুকের গভীরে শীতকাটা- হিম চোখে খোলা দৃশ্য দেখে!

মৃত্তিকা চাষীর ঘুম উড়ে যায় রতিসরোবরে
যৌথ সংরাগ ওঠে দৃশ্যমান কালের বিবরে!

৬)
কোন অধিকারে যাও জলের সীমানা
শিখরে উড়িয়ে জলন্ত দাহ;
মৌনব্রতে কীসের কাঙ্ক্ষা তবে, যাপিত দেহ-বাসে
সুগন্ধের কোন উৎসব দেখো রোজ বৃক্ষবালক তুমি?

মায়াবতী বেলাজ জ্যোৎস্নার ভাগচাষী আমি
দিয়েছিলে বিবর্ণ ক্ষেত হাতের মানচিত্রে ভরে
এখন দেখি পোড়া বিশ্বাসে জাগে ভাতের হৃদয়
চোখের সরোবরে ঝুলে থাকে এক উঠোন আকাশ!

৭)
সূর্যবেহালা শুনে শুনে গড়িয়ে যায় হিরণ্যদুপুর
এই বেলা জমে থাক পাতার আড়ালে
চোখে উড়িয়ে শূন্যসড়ক, জিয়ালা বাতিঘর
মেঘের সরোদ দৃষ্টি তোলে আকাশ মহলে
দূরে তবে কেন কাঁদে গোপন অর্কিড!

The Smellings of Silences

All were irony then! Jest or mockery
Flooting Spilt of water in search of inner-flying clouds
Dazzled eyes, green chlorophile, poetic pride
Unspoken poetry or the dimensions of destination?
I can see, amidst the intuitive air, burning-the ponds in eyes
The path is being taking its reach by foot in
parallelogram shadows
In the young winter yeards where Blossomed ‘Lau Phool’
[flower of goard]
Pressing in the heart the perfume of ‘Dhup’ modest dawn-lit night.
And became handful of rituals of pleasaret happiness
Constrain less path-the friendly guide are you
In the sky of the immersing lower part of the setting moon
Let fly childhood kites
Explaining jets Let there may be then the flow
The highest knowledge of knowing ‘Bodhishatta’
Exploring flow the smelling of silence.

2)
I come back to the laps of silence once of more
untouched leafs- lonely after the autumnal path.
Came back they also, Who once sought t
he drinking pot of fulfillment into homely journey;
Weeping night now in his aerial touch pleasure
Demands creeping in the morning of eyes.
Colorless ness reformation of change- that’s a new arrangement
Grasping various false truth in the study of delayed aesthetics.

3)
Smelling Pro-soil moonlight
If you are unaccounted sex-river in the royal-beauty path
The summit of mountain sounds
On the top of your jingling tinkling anklet
Of putout everyday thesty in holy bath
in mid night saw machine of greed
make me awaken will sufficient sound of fury
untouched `hi hi’ of dust
I compose word god-a lead-persong in the body or
forms of poetry
Sun-Shine reptile Behead drunkard’s mouth, even though
in a long inhalation (breath) ,
after drink malice-take shelter
searching self-satisfaction
belief engineering passes away different path-
on the breast of wide leaf

4)
Now I will sow the seed of water in the yeard of clouds.
(Dhan shalikh : an indegenous rural bird)
Will find out welfare prayer in its own language
Seating the guard of sun rays in vocal
Who took down oneday, making the garden empty,
Soil laden pain fruit
This specking on the wings today touches away
Alien sleep!
One day Colored eye hailed from the bed of the fishes
Hangs lips, weted in rainy season
Inside the dream-wiped colored envelope
Come up mist-kept ajar-hope of men in the Nobel committee.

5)
I rub dark Summons, hear the songs of the crickets.
In mist-distended tail-feathers-Peacock goes afar
Sincere most obedient Moon, one day.
Winter cut in the depth of heart-see s open scences
Cold blooded eyes.
Perceived by the
Sleep of soil farmer flies to lake of sex
Comes up joint grapes of wrath on visual hole of the time?

6)
What right lead you top of water border
Flying flaming tormented anguils;
What is the intension in silence you, the tree-boy
see what ceremony of perfume
in the late physical intercourse.
I am a half-share peasant of
affectionate shameless moonlights.
Once you gave me colorless field
Pouring full on my map of hand
Now, I see there arises in burnt-belief
The hearts of rice
Hangs there one yard sky
In the lake of eyes.

7)
Golden-noon pass through the violin of sun
let it be hoard behind the leaves
leaving the eyes of empty-road, lively lighthouse,
orchestra of clouds, rise their eyes to the sky castle.
Then why the hidden orchid cry far away!  

Translated by Awlad Hossain

Loadingপ্রিয় তালিকায় রাখুন!
E