৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪
নভে ২৫২০১৬
 
 ২৫/১১/২০১৬  Posted by
কবি কামরুল ইসলাম

কবি কামরুল ইসলাম

কামরুল ইসলাম -এর ৫টি কবিতা ইংরেজি ভাষান্তরে
[কবিকৃত ভাষান্তর]


হেমন্তের ক্যাটাস্ট্রফি

জল ও তৃষ্ণার মাঝে ঘর বেঁধে বেঁচেবর্তে আছি;

হেমন্তসন্ধ্যায় মাছেদের উড়ালদৃশ্য দেখি আর
বাঁশপুকুরের ঝোপের আড়ালে শিয়ালনির শীৎকার শুনে
আমজনতার গোধূলি নিয়ে ভাবি-
সেই আড়াল যেন জোছনা-মাখা মধুভা-, গল্পের ভাঁড়ার
সেখানে এসে যোগ দেয় ধ্যানগ্রস্ত লিরিকের ঝাঁক
ধানগন্ধ রূপোর কৌটা ছড়িয়ে দেয় ইলশেগুড়ি ঘুম

পুরনো অভ্যেসগুলো বেরিয়ে আসে নতুন ফর্মে
জঙ্গলের ভেতরে পোকা-মাকড়ের কনভয় থেকে দূরে
তুমি সারাদিন লং-ড্রাইভের সুতো ধরে ভাসছো
আর এদিকে পুরনো কষ্টগুলো কিনে ফেলে ফড়িয়ারা
হেমন্তের চিঠি নিয়ে যারা বেড়াতে এসেছিল ধানী মাঠ বেয়ে-

The Catastrophe of the Late Autumn *

Making a hut between water and thirst
I somehow have kept my journey…
In the late autumn evening, I see the flight of fishes
and think over the dusk of the public
 hearing the erotic sound of a  female jackal in the bushes
beside the pond surrounded by bamboo clump

That hide is as if a  shimmering pot of honey,
a huge source of tales where a bunch of lyrics lost in thoughts
attend , the silver pot with the fragrance of paddy spreads
the drizzling  sleep

The old habits emerge in a new form
You are floating all day long catching hold of
the thread of  a long drive
far away from the convoy of the insects of jungles
The middle men, coming to visit over the paddy fields
with the letters of the late autumn, imperceptibly purchase the old pains


হাওয়া ব্রিজ

একটি অসুখী রাজহংসী সূর্যস্তের গন্ধসহ ডুবে যাচ্ছে জলে
তখন ঝিরঝিরে হাওয়া
স্বরূপ- অরূপের সঙ্গম
তখন আনন্দ-কিন্নরী জলের ক্রন্দনে-

নৈঃসঙ্গের বিহ্বল জালে
ঘাস ও সূর্যাস্তের শঙ্খচূড় অন্ধকারকে আটকাতে গিয়ে দেখি:
বোসবাড়ির খোলা মাঠে একে একে সন্ধ্যারা রাত হয়ে আসে
রাতগুলো ক্রমশ রজনী হয়ে
ফিরে যাচ্ছে ভৈরবের পাদটীকায়, অহিংস প্রোটিনে-

হাওয়া ব্রিজের নিচে মোহিনীর এরিয়েল চোখ
চিরকুটে  জলভর মেঘ- অধিক ফলন্ত ঢেউ খসে পড়ে

The Wind Bridge *

An unhappy goose is drowning in the water
with the fragrance of sunset
Then the gentle breeze blows
There stands the co-existence of the seen and the unseen
Then the pleasure of  silence with the sobs of water–

To trap the  copulated darkness of grass and sunset
into the net of loneliness
I see the evening sliding towards night  
and the nights towards midnight,
They are going back to the footnote of Bhairob and also
to the candid protine–

The aerial eyes of Mahinee under the wind bridge,
Rain-marked cloud in the hand– the furious waves break…


হৃৎপিণ্ডের ছবি

কতিপয় দৌড় দিগন্তের ফাঁকে ফ্রিজ হয়ে গেলে
একটি হারানো চোখ, একটি ভুলে যাওয়া সুর
তামাটে গানের খড়খড়ি খুলে
দেখতে থাকে পুরনো কুয়োর জল-
জলের বুনো তরঙ্গে বেতঝাড়ের অতীত পর্যন্ত দেখা যায়,
এই ফাঁকে আমি লন্ড্রির দোকানে বসে
কৈশোরের বনবোজনের কথা ভাবি
ভাবি একখ- হারানো ভিটের সাজগোজ, আর
সীমান্তের কাঁটা তারের সৌন্দর্য নিয়ে
এঁকে ফেলি কারো ঝুলকালি মাখা হৃৎপিণ্ডের ছবি-

The Sketch of Heart *

When some races get frozen in the chasm of the horizon
a lost eye, a forgotten tune keep watching the water of
an old well opening the window panes of burnt songs.
The far past of cane-plants are seen in wild waves of water…
In such leisure, I think of the picnic of my adolescence sitting
in a tailor’s shop. I also think of a  lost habitation,
it’s surroundings and make a sketch of someone’s  
sooted  heart remembering the beauty of the barbed wire
of the neighbours–


শীতসন্ধ্যার পরমায়ুর দিকে

তোমার শীতরঙ শাড়ি দেখে বোঝা যায়-
তুমি রাত পোহালেই লং-ড্রাইভে যাবে, আর উত্তরের আকাশে
দেখা যাবে শর্ষেখেতের একঘেঁয়ে হলুদ –
তোমার বাড়িটি এখন কৃষিবিদ্যার সামিয়ানার নিচে
আগুন জ্বালিয়ে আসবাবের অদৃশ্য কেতাবগুলোর
পৃষ্ঠা উল্টাতে উল্টাতে আর ঘুমিয়ে পড়ে না,
শুধু কিছু অবুঝ মৌমাছি অবিভাজ্য বনস্পতির চাষ ও চর্চা নিয়ে
আজো যেন বসে আছে পথের মাথায়-

পরজন্মের ফুল-ফোটা প্রহরের অপেক্ষায়
এক রঙতুলির গল্প ছাড়িয়ে যায় লং-মার্চের সন্ধ্যা,
তখন অনাথ সরণির বাতাসেরা গেয়ে ওঠে
সাত-সকালের খবর, আমাদের ভাবের তারুণ্য পথ ভুলে
চলে যায় শীতসন্ধ্যার পরমায়ুর দিকে-

The Unending Zone of Winter Evening *

Your winter-coloured sari indicates that you will go
a long drive at the end of the night,
The persistent yellow of mustard field will appear
in the north sky …
Turning the  disappeared books of furniture
your home does not fall asleep
under the samiana of agriculture…
We see nothing but some  helpless bees
sitting at the end of the path with indivisible
management of trees…

A tale of a painting brush supersedes
 the darkness of long-march for the sake
of blooming flowers of the next world…
Then the  wind of the less-used street sings
the news of early morning
and our youth of feelings goes away
to the unending zone of winter evening…


সন্ধ্যা হয় হয়

স্নানদৃশ্য কেঁপে ওঠে গাছের আড়ালে-
দক্ষিণে লাগানো মেহগনির চারাগুলোয় অদৃশ্য মৃদ্রার
ঝনঝন শব্দের সাথে উত্তরের বেড়া ভাঙার শব্দ
সুখের বাতি নিভতে নিভতে তুমি পৌছে যাও পথের মন্দিরে
অড়হড় খেতে বাতাসের কান্নার মতো একটি টেনিস বল
চারপাশ রাঙিয়ে পাথর কেটে কেটে, কোমরে ঢেউ তুলে
পাল বাড়ির ওপর দিয়ে বয়ে যায়, তখন সন্ধ্যা হয় হয়-

The Evening Starts *

The bath-scene shudders in the secret region of trees-
The plants of mehogoni, planted in the south
resides with the rattling sound
of silent cash as well as fence breaking in the north…
You reached the  temple of path with the last flash
of the light of happiness…
When the evening starts, a tennis ball
like the cry of wind in the pea-field blows over the
huts of the potters with  spectacular rays
chiselling rocks and with waving mood, then the evening starts…

*Translated into English by the poet himself

Loadingপ্রিয় তালিকায় রাখুন!
E