৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৪
ডিসে ০৩২০১৬
 
 ০৩/১২/২০১৬  Posted by
কবি গৌরাঙ্গ মোহান্ত

কবি গৌরাঙ্গ মোহান্ত


আকাশ ও বেদনার হরফ

বেরিয়ে আসার জন্য প্রযত্ন প্রয়োজন। ইচ্ছে হলেই আকাশ দেখা যায় না। পেরোবার পথ থাকে না মসৃণ। কাঁটাগাছে পূর্ণ থাকে পথের দু ধার। পথের বন্ধুরতা ও কাঁটাগাছের অস্তিত্বের মধ্যে রয়েছে নিবিড় সম্পর্ক। অজ্ঞাত পরিকল্পনার প্রভাময় সঙ্কেতে প্রণীত হয় যাত্রা-সম্ভাব্যতার সূত্র। পা বাড়ালেই রক্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে কাঁটার জ্যোৎস্নাময় বিষ। আকাশ না দেখলে ক্ষতি নেই। আকাশ সকলের জন্য দর্শনীয় নয়। বৃত্তকে টুকরো করে, পাথুরে দেয়ালকে ভেঙে ফেলে আকাশ দেখার মধ্যে উত্তেজনা ও আনন্দ রয়েছে। আনন্দ যখন উপভোগ্য হয়ে ওঠে তখন বিভোরতা গভীরতর হয়। কণ্ঠের বদলে দৃষ্টি রূপান্তরিত হয় ভাষা ও বেদনার গোপীযন্ত্রে। অব্যক্ত ভাষা ও বেদনার বিভাসিত হরফ আকাশ থেকে নেমে আসে। আকাশকে কেউ কেউ উপেক্ষা করতে পারে না। জ্যোতির্বিদ্যাময় আকাশের জ্ঞান সাধারণ নয়, ব্যক্তিগত। আকাশ উন্মোচন করে দর্শকের প্রয়াস ও প্রাপ্তির দূরতা এবং জীবনের অপ্রচারিত সত্য।

The Sky and Alphabet of Affliction *

It demands an all-out effort to come out. A sky cannot be seen at pleasure. A road to take does not remain smooth. Two sides of the road are left abundant in spiky shrubs. There is a close relation between the ruggedness of the road and the existence of spiky shrubs. The principle of journey-probability is drawn up by the glowing symbol of unknown planning. As one steps forward, poison of thorns gleaming in the moonlight spread in blood. There is no harm in failing stare into sky. The sky is not worth staring for all. Staring into the sky causes excitement and delight when circles are crumbled up, walls pulled down. Once delight becomes enjoyable, trance deepens. Vision instead of voice is transformed into a one-stringed musical instrument of language and affliction. The unvoiced language and illuminated alphabet of affliction come down from the sky. Some cannot disregard the sky. The astronomical knowledge of the sky turns out to be personal, not common. The sky unveils the difference between gazers’ endeavour and their attainment— unfolds the unrevealed truth of life.


শূন্যতা ও পালকপ্রবাহ

শূন্যতা কেবিন ক্রুর কৃত্রিম উজ্জ্বলতায় কেঁপে ওঠে। আমার কম্পিত দৃষ্টি বিরামপুরের স্ফীত পথে প্রসারিত হলে তুমি মুহূর্তেই চীনের বসন্ত ফুলের উচ্ছলতা নিয়ে আবির্ভূত হও। আমরা বাতাসে অঙ্গীকার, প্রতারণা ও ভবিতব্যমূলক সাংকেতিক পালক ছড়াতে থাকি। প্রার্থনা আমাদের সংবেদনা থেকে আলো ঝরাতে থাকে। পরিপার্শ্ব দুর্লভ পালকের বিচলনে প্রতপ্ত হয়ে ওঠে এবং নদীর উন্মন ধ্বনি অদৃশ্য ময়ূরপাখার ভেতর ঢুকে যেতে থাকে। প্রতারণাদগ্ধ মেঘের হাহাকার আমাদের অগভীর চুলে দুর্বহ কোরাসের প্রতিধ্বনি তোলে। ইথারাশ্রিত অঙ্গীকার বার্ডস নেস্ট সন্নিহিত বৃক্ষখুঁটির অসম্ভব সামর্থ দিয়ে আমাদের দাঁড় করিয়ে রাখে। আমরা মহাপ্রাচীরের ওপর দিয়ে ভবিতব্যের অস্পষ্ট বাতিঘরের দিকে তাকিয়ে থাকি। দ্রুতগতি ঘোড়ার জিনে চেপে আমরা ছ হাজার মাইল পরিভ্রমণে বেরিয়ে পড়ি। খর্বাকৃতি প্রহরীর অগ্নিময় কুঠার আর বল্লমে আমাদের ঘ্রাণময় সত্তা ঝলসে উঠতে থাকে। আমরা পাহাড়ের বসন্তের ভেতর, উপত্যকার শীতল হাওয়ার ভেতর হারিয়ে যেতে যেতে রোদের শুশ্রুষা গ্রহণ করি। অনন্তর দুর্বোধ্য সুড়ঙ্গপথে এগিয়ে আমরা শিশুদের হাতে আলোকময় ভূগোল তুলে দেই আর অনন্ত অন্ধকারে অন্তর্লীন বাতাস বিসর্জনে প্রস্তুতি নিতে থাকি।

Voidness and the Flow of Feather *

The voidness trembles with the artificial radiance of the cabin crew. As I cast quivering glance on broad Birampur Road you appear in a moment with a wave of exultation flowed from Chinese spring flower. We start strewing promises, impostures and destiny-based symbolic feathers in the air. Entreaty makes the light pour from our sensation. Surroundings heat up because of unsteadiness of rare feathers; the indifferent sound of the river intrudes into the wings of invisible peacocks. Burning with impostures, the cloud’s wailing echoes with unbearable chorus in our thin hair. Promises, shrouded in the ether, make us stand erect with the incredible strength of tree-supports found near Bird’s Nest. Above the Great Wall we look at the blurred lighthouse of destiny. We swing ourselves into the saddles and ride off traversing a distance of six thousand miles. Our odorous existence gets seared as the stunted sentries approach with their fiery axes and spears. While getting lost in the spring of hills, in the chill air of valleys, we get nursing of the sun. We rush thereafter through dark, dank tunnels to offer the children a luminous geography and make preparation to cast off inner air in the vastness of the dark.


ডায়মন্ড  ব্লেড

ব্যথাতুর মৃণালে জেগে আছে স্নো-পদ্ম। ভাইবারে ভেসে ওঠা শুভ্র দ্রাঘিমা ক্রমশ উন্মোচন করে ইলেকট্রন-অঙ্কিত ত্রিভুজতত্ত্ব। বহির্ফ্ল্যাটে ডায়মন্ড ব্লেড কেটে চলে স্বপ্নবর্ণ টাইলস। ঝনঝনায়মান আকাশের শীর্ষে ওড়ে পদধ্বনিময় রুমাল। চেতন-অবচেতনকে কাঙ্ক্ষিত ব্লকে কেটে জন্মগন্ধময় মৃত্তিকায় খাড়া করবার চেষ্টায় থাকি নিয়োজিত। অনুচ্চ ভবনের পাশে পড়ে থাকে শুকনো, পচা, তাজা রক্ত। রক্তসাক্ষ্য স্বীকার করে না ম্লানতা; ধুলোকণায় রেখে যায় মিহি উজ্জ্বলতা, বাতাসে সতেজ স্নো-স্বপ্ন।

Diamond Blade *

Snow-lotuses have support from afflicted stalks. A white line of longitude on viber gradually unveils the figure of a triangle drawn by electrons. Outside the flat a diamond blade continually cuts tiles brightened in dream-colour. High up in the clattering sky flies a handkerchief on winged feet. I divide the conscious and subconscious selves into desired blocks to place them vertically on the soil that emanates my birth-smell. Beside the low-rise building left are traces of dried, rotten and fresh blood. A blood-witness never accepts dullness; it leaves soft brilliance in dust, vivid snow-dream in the air.


ঝরুক তারকিত সোমরস

দিনগুলোর ভেতর সাটিন টানানো নেই। আমরাই সেগুলোকে আলো অন্ধকারে বিভাজিত রাখি : কিছু কিছু দিন দাঁড়িয়ে থাকে আঠালো আকাশে; কিছু কিছু দিন পটাশজলের শুশ্রুষা নিয়ে রোদে চিৎ হয়ে থাকে। আঠালো আর চিৎ-হওয়া দিনগুলো প্রতিনিয়ত চারিয়ে দেয় শেকড় মনমৃত্তিকায়। বন্ধুমনের শেকড় থেকে ফোঁটা ফোঁটা ঝরুক তারকিত সোমরস।

Sparkling Wine *

A piece of satin cloth cannot be stretched among the days. We the humans divide days into light and darkness: some days stay on sticky sky; some washed by potash-water lie face up in the sun. Days sticky or lying supine always take roots in psychic soil. Let the drops of sparkling wine ooze out of the roots grown in the minds of my friends.


অন্ধকার ও স্বপ্নহীন বাতাসের ফ্লেয়ার্ড বেল

অন্ধকারে দূরবর্তী বাতি আর আধা-কালো আকাশের নক্ষত্র ছাড়া দ্রষ্টব্য কিছু নেই। নিরালোক গ্রামের পথে যখন হাঁটি বৃক্ষ-লতা-ডোবার গন্ধে ভেসে আসে অতীত; দৃশ্যমান ক্রেভ্যাসের মুখে রূপালি মই জুড়ে অতীত নিয়ে যায় হিম ভবিষ্যতে। দহনঅভিজ্ঞতা থেকে ধারণা জন্মেছিল, জীবন রক্তাক্ত বা রক্তপাতহীন আঘাতের সহজ শিকার। গন্দমঋতুর রূপমাধুর্য দেখে বুঝেছি জীবন একমাত্র বেদনার শস্যক্ষেত্র নয়। অভূতপূর্ব প্রাপ্তি মুছে দিতে পারে শুকনো ক্ষতের পাংশু মোহর। সিদ্ধিকুম্ভ ক্ষয়িত প্রত্নশানের সন্তাপে হতে পারে শিহরিত; তবে অন্তর্গূঢ় অস্তিত্ব থেকে নি:সারিত হয় নিষ্ফলতার বোধ। অন্ধকারে মাটির হিমপ্রবণতা বৃদ্ধি পায় এবং চূর্ণিত শিলার ভেতর সংকেতময় হয়ে ওঠে স্বপ্নহীন বাতাসের ফ্লেয়ার্ড বেল।

Darkness and the Flared Bell of Dreamless Air *

Nothing is visible in darkness except the distant light and stars in slightly murky sky. I take the lightless path through the village; the smell of tree-creeper-ditch floats up from the past. The past transports me into chill future putting up a silver ladder against the mouth of visible crevasse. As I went through an agonizing period, the thought occurred to me that life might fall easy prey to bloody or bloodless blows. The breathtaking beauty of seductive season makes me understand that life is not the single corn-field of affliction. An unprecedented attainment can wipe out the grey stamp of dry wound. The pitcher of prosperity may shudder with the distress felt by decayed, old stone; the sense of futility exudes from secret existence. The trend of coldness in earth rises upwards in darkness; the flared bell of the dreamless air turns out to be symbolic in crushed rocks.

* Translated into English by the poet himself.

Loadingপ্রিয় তালিকায় রাখুন!
E