৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪
নভে ১২২০১৬
 
 ১২/১১/২০১৬  Posted by
সুমন বন্দ্যোপাধ্যায়

সুমন বন্দ্যোপাধ্যায়

সুমন বন্দ্যোপাধ্যায় -এর পাঁচটি কবিতা


ভিন্ন পথিক

ক্রমশঃ বিচ্ছিন্নতা থেকে
আমরা সাজিয়ে নিয়েছি পথ যে যার মতো।
দুঃখ বল, কান্না বল
কিম্বা বাঁশপাতাটির মত কেঁপে ওঠা অভিমান
কাগজের নৌকায় ভাসিয়ে দিয়েছি
যে যার নিজস্ব স্রোত

তুমিও এক মাইলস্টোন
আমিও এক মাইলস্টোন
মাঝখানে স্বান্তনার মত ছড়ানো দূরত্ব

কেউ কারো মুখ দেখবো না কোনদিনও।


পরকীয়া আগুন

নিজস্ব নারী শরীরের আগুন
ক্রমশঃ ব্যবহৃত হতে হতে
আরো বেশি করে উসকে দেয়
পরনারী শরীরের আগুনকে

পিঙ্কিদি হোক কিম্বা পাশের বাড়ির স্মিতা বৌদি

সম্পৰ্কের নিরাপদ আড়াল থেকে
আমরা যৌনতা হাতড়ে বেড়াই
যে যার মতো।


অন্ধবালকের রোদচশমা

কার চোখে কী স্বপ্ন রেখে গেছো তুমি ?

হাত ধরে ডেকে নেয় হলুদ দুপুর
যাপনচিত্রের পাশে তোমার শ্রীমুখ
আর সুরভিত আন্টিসেপটিকের বিজ্ঞাপণ

যখন তখন

চশমা খুলে দেখে নেয় রাতের শহর।


রোপণপ্রহর

লাঙল দাও হৃদয়ে আমার
তলের দুঃখ উপরে কর
এই তো সময়
দুহাতে ছড়াও কান্নাবীজ

ছড়িয়ে দাও, নষ্ট কর
অথবা পুঁতে ফেল অন্ধকার মাটির ভেতর

অপেক্ষা কর
আনন্দ কর
অশ্রুফসলে ভরিয়ে দেবো একদিন
তোমার গোলাবাড়ি।


দূরদৃষ্টি

যে মানুষ আছে অনেক দূরে
যে মানুষ আছে অনেক কাছে
আমি তাদের চশমা ছাড়াই দেখতে অভ্যস্ত
কেন না, চশমা মানুষ দেখতে পায়
কাঁচের ওপারে মানবিকতা ঝাপসা হয়ে যায়।

Loadingপ্রিয় তালিকায় রাখুন!
E